আপনার মন্তব্য উৎসাহ ও প্রেরণার সহায়ক !

আপনার মন্তব্য উৎসাহ ও প্রেরণার সহায়ক !

সোমবার, ৩ জুন, ২০১৩

সবজি বিরিয়ানী



উপকরণঃ 

১। সয়াবিন তেল 
২। পেয়াজ 
৩। জিরা 
৪। মরিচ 
৫। লবণ 
৬। তেজপাতা 
৭। দারচিনি 
৮। লবংগ
৯। গোল মরিচ 
১০। আদা এবং রসুন বাটা 
১১। হলুদের গুড়া 
১২। টমেটো 
১৩। মরিচের গুড়া 
১৪। গরম মসলা গুড়া 
১৫। দই 

১৬। বিরিয়ানি মসলা 
১৭। পুদিনা পাতা, ধনিয়া পাতা 
১৮। সবজি; যেমনঃ আলু, ফুলকপি, গাজর, মটরসুটি 
১৯। বাসমতী চাল 
২০। পনীর / দুধ 
২১। পেয়াজ ভাজা 

কিভাবে করবেন:

১। চুলা ধরিয়ে একটি বড় কড়ই নিন এবং গরম করুন 
২। তেল ঢালুন 
৩। তেল গরম হলে তাতে জিরা (আধা চামচ), তেজপাতা (২ টা), দারচিনি (১ টা), গোলমরিচ (২/৩ টা), লবংগ (৩/৪ টা) ঢালুন। 
৪। মিশ্রণটিকে নাড়ুন এবং কিছুক্ষণ সময় দিন
৫। এইবার কাটা পেয়াজ ঢালুন 
৬। এবার মিশ্রটিকে নাড়ুন এবং অপেক্ষা করুন পেয়াজ হাল্কা কালার বদল হওয়া পর্যন্ত 
৭। আদা আর রসুন বাটা (১ চামচ করে), মরিচ (২/৩ টা) ঢালুন এবং মিশ্রণটিকে নাড়ুন 
৮। হলুদের গুড়া (আধা চামচ) ঢেলে আবার নাড়ুন ২/৩ মিনিট 
৯। টমেটো এবং মরিচের গুড়া (১ চামচ), গরম মসলা গুড়া (১ চামচ) ঢালুন 
১০। ভালমত মিশ্রণটিকে নাড়ুন এবং এতে পরিমাণমত লবণ দিন 
১১। হাল্কা পানি দিতে পারেন টমেটো রান্না করার জন্য যাতে ভালমত গলে যায় 
১২। ২ চামচ দই, এবং দেড় চামচ বিরিয়ানী মসলা ঢালুন। 
১৩। কাটা ধনে পাতা, পুদিনা পাতা দিয়ে মিশ্রণটিকে আবার নাড়ুন 
১৪। এরপর একে একে সব সবজি ঢালুন এবং নেড়ে দিন। সবজি যাতে তারাতারি সেদ্ধ হয় তাই ঢেকে দিন। তবে আলু দিতে চাইলে আগে আলু দিন এবং ৫ / ৭ মিনিট সেদ্ধ হতে সময় দিন। 
১৫। এইবার ২/৩ পট বাসমতি চাল নিয়ে ধুয়ে নিন। আর একটি পাতিলে পানি গরম করুন। পানি যখন হাল্কা ফুটবে তখন তাতে তেজপাতা, লবংগ, দারচিনি, গোলমরিচ, লবণ ঢেলে নাড়ুন। এরপর তাতে চাল ঢেলে সেদ্ধ করুন ১০ থেকে ১৫ মিনিট। চামচ দিয়ে উঠিয়ে দেখুন চাল সেদ্ধ হয়েছে কি না। সেদ্ধ হলে ছাকনী দিয়ে পানি ফেলে দিন
১৬। এখন সময় পনীর অথবা দুধ (আধা কাপ) দেওয়ার সবজিতে। যাই দিন তা নাড়ুন এবং ২/৩ মিনিট ঢেকে রাখুন। 
১৭। এইবার সাবধানে সেদ্ধ ভাত ঢালুন মিশ্রণটিতে। চারিদিকে যাতে সমান ভাবে ভাত থাকে তা খেয়াল রাখুন। ভাতের উপর বিরিয়ানী মসলা, পেয়াজ ভাজা, ধনিয়া পাতা, পুদিনা পাতা দিন। 
১৮। ঢাকনা দিয়ে ঢেকে চুলার হিট বাড়িয়ে দিন ৪০ সেকেন্ড এর জন্য। এরপর তা কমিয়ে মধ্যম মাত্রায় আনুন। ৩ মিনিট রাখুন এভাবে। এরপর স্লো হিটে রাখুন আরো ২৫ মিনিট। 

ব্যস হয়ে গেলো মজাদার রান্না। তবে চামচ দিয়ে উঠানোর সময় কোণা দিয়ে ওঠাবেন। 

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন